Wednesday, August 10, 2022

মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র বের করার নিয়ম!

মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র (Mobile Number Diye Nid Check): জাতীয় পরিচয় পত্র প্রত্যক নাগরিকের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্ট। এই ভোটার আইডি কার্ডের মাধ্যমে আমরা সহজেই বিভিন্ন সরকারী সুযোগ-সুবিধা ভোগ করতে পারি। 

বাংলাদেশ সরকারের নিয়ম অনুযায়ী প্রত্যক ১৮ বছর বয়সী নাগরিক ভোট দেওয়ার সু্যোগ লাভ করে। তাই ১৮ বছর হলে যে কেউ ভোটার আইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয় পত্রের জন্য আবেদন করতে পারবে। 

জাতীয় পরিচয় পত্র থাকলে আমরা অনেক সময় আমাদের ভোটার আইডি কার্ডের যে নাম্বারটি আছে সেটি সবসময় মনে রাখা সম্ভব হয় না, ফলে যখন এর প্রয়োজন পড়ে তখন তাৎক্ষণীক ভোটার আইডি কার্ড সাথে থাকে না বলে আইডি কার্ড দিয়ে যে সুবিধাটি পাওয়ার কথা সেটি পাই না। এছাড়া আমরা অনেক সময় ভোটার আইডি কার্ড হারিয়ে ফেলে। এর ফলে নতুন করে ভোটার আইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয় পত্র তোলার জন্য আইডি নাম্বার এর প্রয়োজন পড়ে।

কেমন হয় যদি আমরা মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র বের করে ফেলি? যদি এটি সম্ভব হয় তাহলে কিন্তু সহজেই জাতীয় পরিচয় পত্রের নাম্বারও সহজেই দেখতে পারব তাই না? আসলে এমনটি কি সম্ভব? অবিশ্বাস্য হলে সত্যি যে মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র (National identity card with mobile number) দেখা সম্ভব। তাহলে চলুন জানা যাক, কিভাবে মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র দেখতে হয়।

মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র
মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র

মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র বের করার নিয়ম

Ussd কোড ডায়াল করে এবং নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইট থেকে জাতীয় পরিচয় পত্র দেখা সম্ভব হবে। এর জন্য আপনাকে তেমন কঠিন ঝামেলায় পড়তে হবে না। 

আপনার মোবাইল নাম্বারটি যে জাতীয় পরিচয় পত্র বা ভোটার আইডি কার্ড এর মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে সেই আইডি কার্ডের নাম্বার আপনার সিম দিয়ে দেখতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে শুধুমাত্র একটি কোড ডায়াল করতে হবে। কোডটি হলো *১৬০০#। কোডটি ডায়াল করার পর কিছু স্টেপ সম্পন্ন এর মধ্যমে সিমটি যে জাতীয় পরিচয় পত্র দিয়ে রেজিস্টেশন করা হয়েছে সেই জাতীয় পরিচয় পত্রের আইডি নাম্বার পেয়ে যাবেন এর পাশাপাশি নাম ও অন্যান্য তথ্যও।

এভাবে খুব সহজে USSD কোড ডায়াল করার মাধ্যমে আপনি মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র দেখতে পারবেন। এছাড়াও যদি আপনি অনলাইন থেকে মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র দেখতে চান, তাহলে আপনার ২টি জিনিসের প্রয়োজন হবে।

১. যে নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্রের জন্য আবেদন করেছেন সেই নাম্বারটি।

২. নির্বাচন কমিশনার ওয়েবসাটে লগিন করার জন্য পাসওয়ার্ড। যদি পাসওয়ার্ড ভুলে গিয়ে থাকে, তাহলে রিসেট করে নিতে পারবেন। এর জন্য ফোন নাম্বারটি সাথে থাকতে হবে।

তথ্য দুইটি যদি আপনার সাথে থাকে, তাহলে প্রথমে নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাটে ভিজিট করুন। ওয়েবসাইটের লিংক – services.nidw.gov.bd

ওয়েবসাইটে ভিজিট করার পর লগিনে ক্লিক করুন। লগিন করার জন্য ইউজারনেম ও পাসওয়ার্ড চাইবে। ইউজারনেমের পরিবর্তে মোবাইল নাম্বার বসাতে পারেন। আর যদি তা দিয়ে কাজ না হয়, তাহলে মোবাইল নাম্বার দিয়ে ইউজার নেম রিসেট করতে নিতে হবে। সঠিক তথ্য দিয়ে লগিন করে নিন।

লগিন করার পর ড্যাসবোর্ড এ প্রবেশ করুন। ড্যাসবোর্ড এ প্রবেশ করার পর প্রোফাইল থেকে জাতীয় পরিচয় পত্র বা ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড (ID card download) করার সুযোগ পাবেন।

তো এবার ডাউনলোড করে নিন। ফাইল পিডিএফ আকারে ডাউনলোড হবে। ডাউনলোড করার পর যদি তা ওপেন না হয়, তবে প্লে-স্টোর থেকে Pdf Reader অ্যাপের সাহায্য নিন। এভাবে সহজেই মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র (Mobile Number Diye Nid Check) দেখতে পারবেন।

মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র রেজিস্টেশন

আপনার বয়স যদি ১৮ বা তা অধিক হয়ে থাকে, তাহলে আপনি মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্রের জন্য আবেদন করতে পারবেন। আর যদি ১৮ বছর না হয়, তাহলে এই সুযোগ পাবেন না।

এই ছিল আমাদের আজকের মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র (National identity card with mobile number) বের করার নিয়ম। আর্টিকেলটি নিয়ে আপনার যেকোন মতামত বা জিজ্ঞাসা থাকলে কমেন্ট করতে পারেন।

জাতীয় পরিচয় পত্র নিয়ে প্রশ্নের উত্তর

অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার উপায়?

ভোটার আইডি অনলাইন কপি ডাউনলোড বলতে ভোটার আইডির স্ক্যান কপি ডাউনলোড করাকে বোঝায়। বর্তমানে আমাদের যেকোন জায়গায় যেকোন সময় ভোটার আইডি প্রয়োজন হতে পারে। কিন্তু ভোটার আইডি কার্ড আমাদের সাথে সবসময় না থাকতেও পারে।

বিদেশে থাকার কারনে যদি পরিচয়পত্রের জন্য আবেদন করতে না হয়ে থাকে, তাহলে এখন কিভাবে করা যায়?

নিকটস্থ নির্বাচন কমিশন অফিসে গিয়ে আপনার পাসপোর্ট, এস এস সি সার্টিফিকেট, জন্ম সনদ বিদ্যুৎ বিল, নাগরিকত্ব সনদ সহ প্রয়োজনীয় ফরম পূরণ করে আবেদন করতে হবে

আরও পড়ুনঃ

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি ডাউনলোড ২০২২

জন্ম নিবন্ধন যাচাই অনলাইন চেক Apps

Related Articles

- Advertisement -spot_img

Latest Articles